ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে ১ এপ্রিল থেকে মোবাইল কোর্ট পরিচালনার নির্দেশ

5

ডেঙ্গু রোগের বাহক এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে আগামী বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার নির্দেশ দিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস।

রোববার (২৮ মার্চ) সন্ধ্যায় নগর ভবনের বুড়িগঙ্গা হলে নিয়মিত সাপ্তাহিক মশক নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রমের পর্যালোচনা সভায় ডিএসসিসি মেয়র সংশ্লিষ্টদের এ নির্দেশ দেন।

তাপস বলেন, ‘গত বছর আমরা ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রমে সফলতা পেয়েছি। সেই সফলতা ধরে রাখতে এ বছর আমাদের এখন থেকেই প্রস্তুতি নিতে হবে। সেজন্য আপনাদের এ বছর আরও বেশি পরিশ্রম করতে হবে এবং ঢাকাবাসীকে ডেঙ্গু রোগের প্রকোপ থেকে মুক্তি দিতে তদারকি বাড়াতে হবে। বাড়াতে হবে সমন্বিত সামগ্রিক কার্যক্রমও। পাশাপাশি নগরবাসীকে স্বস্তি দিতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা জোরদার করতে হবে। তাই ডেঙ্গু মোকাবিলায় আগাম প্রস্তুতি হিসেবে আগামী ১ এপ্রিল থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করুন।’

ডিএসসিসি মেয়র শেখ তাপস এ সময় স্বাস্থ্য অধিদফতর পরিচালিত প্রাক-বর্ষার (প্রি-মনসুন) জরিপ অনুসরণ-পূর্বক যেসব ওয়ার্ড ও এলাকায় মশার ঘনত্ব বেশি, সেসব এলাকাকে প্রাধান্য দিয়ে আদালত পরিচালনার নির্দেশ দেন। এছাড়াও ডিএসসিসি মেয়র ব্যক্তিগত স্থাপনা থেকে শুরু করে বিভিন্ন সরকারি সংস্থা, প্রতিষ্ঠান ও নির্মাণাধীন ভবনে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা জোরদারের নির্দেশ দেন।

এ সময় ঢাকাবাসীকে এডিস মশার প্রজননস্থল ধ্বংসে স্বপ্রণোদিত উদ্যোগ গ্রহণের আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে আপনারা নিজ নিজ অবস্থান থেকে এগিয়ে আসুন। কারণ এ মশার প্রজননস্থল আমাদের সবার নিজ আবাসস্থল ও বসতবাড়ির চারপাশ। তাই নিজেদের আবাসস্থলের পাশাপাশি বাড়ির আঙিনা ও চারপাশ পরিষ্কার রাখা জরুরি। একই সঙ্গে কোনো পাত্রে দীর্ঘদিন ধরে যাতে পানি জমে না থাকে, সে বিষয়েও সজাগ থাকতে হবে।’

অভিযান প্রসঙ্গে ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী বলেন, ‘১ এপ্রিল থেকে আমাদের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করবেন। পাশাপাশি আমাদের আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তারাও এবার ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করবেন।’

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. শরীফ আহমেদ, ডিএসসিসি সচিব আকরামুজ্জামান এবং আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তারা সভায় উপস্থিত ছিলেন।