দুর্দান্ত তামিমে বাংলাদেশের ফিফটি

32

শুরুতেই সাইফ সাজঘরে ফিরলেও দুর্দান্ত খেলতে থাকেন তামিম ইকবাল। তার দারুণ ইনিংসে ১১ ওভার ৪ বলেই ফিফটির দেখা পায় বাংলাদেশ। মাত্র ৩৭ বলে ৯টি চারের মারে ৪৩ রান করেন এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। স্কোর: বাংলাদেশ ৫৫/১ (তামিম ৪৩, শান্ত ১০)

সুযোগ কাজে লাগতে পারলেন না সাইফ

ওপেনার সাদমান ইসলামের পরিবর্তে একাদশে সুযোগ পেয়েছিলেন সাইফ হাসান। সর্বশেষ টেস্টে সাদমান ফিফটি করেছিলেন। দল থেকে ছিটকে পড়েন ইনজুরির কারণে। কিন্তু সাদমানের পরিবর্তে একাদশে এসে সাইফ সাজঘরে ফেরেন শূন্য রানে। এখন পর্যন্ত খেলা তিন টেস্টের ৫ ইনিংসে সাইফের ব্যাট থেকে আসে ২৪ রান। তার মধ্যে দুটি শূন্য। সর্বশেষ খেলেছিলেন জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ২০২০ সালে ঘরের মাঠে।

শুরুতেই সাজঘরে সাইফ

টস জিতে ব্যাটিং করতে নেমে শুরুতেই ধাক্কা খায় বাংলাদেশ। ইনিংসের তৃতীয় ওভারের প্রথম বলে বিশ্ব ফার্নান্দোর বলে এলবিডব্লিউর শিকার হয়ে ওপেনার সাইফ হাসান ফেরেন সাজঘরে। তিনি রানের খাতাই খুলতে পারেননি। ফার্নান্দোর লেংথ বল সাইফের ফ্রন্ট প্যাডে লাগলে জোড়ালো আবেদন করেন ফিল্ডাররা; তবে সাড়া দেননি আম্পায়ার। শেষ পর্যন্ত স্বাগতিকরা রিভিউ নিলে সাইফকে আউট দিতে বাধ্য হন আম্পায়ার।

টস

পাল্লেকেলেতে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টস জিতে ব্যাটিং করছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টা ৩০ মিনিটে ম্যাচটি শুরু হয়।

তিন পেসার নিয়ে বাংলাদেশ

পাল্লেকেলের ২২ গজে পেসাররা সুবিধা পাবেন এমন ধারণা আগে দিয়ে রেখেছিলেন মুমিনুল হক। তাইতো দল বাছাইয়ে পেসারদের অগ্রাধিকার দিয়েছেন। তিন পেসার নিয়ে মাঠে নামছে বাংলাদেশ। দলে রয়েছেন মিরাজ ও তাইজুল। এছাড়া ছয়জন স্পেশালিস্ট ব্যাটসম্যানের সঙ্গে মিরাজ আছেন অলরাউন্ড ভূমিকায়।

বাংলাদেশ দল

মুমিনুল হক (অধিনায়ক), লিটন কুমার দাশ, মুশফিকুর রহিম, তামিম ইকবাল, আবু জায়েদ রাহী, তাইজুল ইসলাম, নাজমুল হোসেন শান্ত, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাসকিন আহমেদ, ইবাদত হোসেন, মোহাম্মদ সাইফ হাসান।

ফিরলেন ম্যাথুজ

ইনজুরির কারণে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে খেলতে পারেননি শ্রীলঙ্কার সাবেক অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ। বাংলাদেশের বিপক্ষে স্কোয়াডে সুযোগ পাওয়ার পর ডানহাতি পেস অলরাউন্ডার ফিরলেন একাদশেও।

শ্রীলঙ্কা দল

দিমুথ করুণারত্নে, লাহিরু থিরিমান্নে, ওশাডা ফার্নান্ডো, পাথুম নিশানকা, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ, ধনঞ্জয়া ডি সিলভা, নিরোশান ডিকবেলা, ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা, সুরাঙ্গা লাকমল, বিশ্ব ফার্নান্ডো, লাহিরু কুমারা।

পাল্লেকেলেতে বাংলাদেশের টেস্ট ‘অভিষেক’

শ্রীলঙ্কার দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর ক্যান্ডিতে দুইটি টেস্ট ভেন্যু। একটি আসগিরিয়া স্টেডিয়াম। আরেকটি পাল্লেকেলে ক্রিকেট স্টেডিয়াম। ২০০৭ সালে বাংলাদেশ আসগারিয়ায় টেস্ট খেলেছিল। ওই বছরের পর আসগারিয়ায় কোনো টেস্ট ম্যাচ হয়নি। পাল্লেকেলে স্টেডিয়ামে আজ বাংলাদেশের টেস্ট অভিষেক হলো। এখানে ২০১৩ সালে একটি করে ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টি খেলেছিল বাংলাদেশ। ওয়ানডেতে বাংলাদেশ স্বাগতিক দলকে হারালেও টি-টোয়েন্টিতে পারেনি। বিশাল এ স্টেডিয়ামে সাত টেস্টে শ্রীলঙ্কার জয় মাত্র ১টিতে।

পরিসংখ্যান শ্রীলঙ্কার পক্ষে

টেস্টে এখন পর্যন্ত লঙ্কানদের বিপক্ষে বাংলাদেশের জয় একটিই। ২০১৭ সালের সফরে প্রথম টেস্টে গলে হেরে গেলেও দ্বিতীয় ম্যাচে নিজেদের শততম টেস্টে স্মরণীয় জয় পায় বাংলাদেশ। বাকি ১৯ টেস্টে ড্র ৩টি, শ্রীলঙ্কার জয় ১৬টিতে।

চাপহীন ক্রিকেট খেলার মন্ত্র বাংলাদেশের

ক্যান্ডি টেস্টের আগে শেষ ১০ টেস্টে বাংলাদেশ জিতেছে মাত্র ১টি। বাকি সবকটিতে হার। ঘরের মাঠে কিছুদিন আগেই হেরেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের দ্বিতীয় সারির দলের কাছে। নতুন সাফল্য না আসায় হারের ক্ষতগুলো এখনও শুকায়নি। দলকে সাফল্যে ভাসানোর চ্যালেঞ্জ নিয়ে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আতিথেয়তা নিতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। তবে চাপহীন ক্রিকেট খেলার মন্ত্র বাংলাদেশের। দলীয় অধিনায়ক মাঠে নামার আগে বলেছেন, ‘আমরা কোনো চাপে নেই। আমরা এখানে ম্যাচ জেতার জন্য এসেছি। আমরা পুরোপুরি চেষ্টা করবো ম্যাচ জেতার জন্য।’