নির্যাতিত তরুণীর চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন মাধবপুরের ইউএনও

13
মাধবপুর উপজেলায় নিষ্ঠুর নির্যাতনের শিকার তরুণীর (১৯) চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শেখ মঈনুল ইসলাম মঈন। মেয়েটির চিকিৎসায় সব ব্যয়ভার বহনসহ তার পরিবারকে সবধরনের সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন এ কর্মকর্তা।
বিভিন্ন প্রিন্ট ও অনলাইনে সংবাদ প্রকাশের পর বিষয়টি উপজেলা প্রশাসনের দৃষ্টিগোচর হয়। মঙ্গলবার বিকালে (২৬ এপ্রিল) জেলা প্রশাসকের নির্দেশে উপজেলার বাঘাসুরা ইউনিয়নের মানিকপুর পুর্ব মহল্লায় স্বপ্নাকে দেখতে গিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মইনুল ইসলাম মঈন উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে স্বপ্নার যাবতীয় চিকিৎসার ব্যয়ভার বহনের আশ্বাস দেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন মাধবপুর থানার পরিদর্শক তদন্ত মো: গোলাম কিবরিয়া হাসান ও মাধবপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি মো: মহিউদ্দিন আহমেদ। পরিদর্শক তদন্ত মো: গোলাম কিবরিয়া হাসান দ্রুত আসামিদের গ্রেপ্তারের আশ্বাস দেন।
উল্লেখ্য মাধবপুর উপজেলা বাঘাসুরা ইউনিয়নের মানিকপুর পুর্ব মহল্লার দিনমজুর বিল্লাল মিয়ার যুবতী কন্যা স্বপ্না কে এলাকার বখাটে যুবক সুমন প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিলো। এতে রাজি না হওয়ায় তার উপর ক্ষিপ্ত হয় সুমন। এদিকে গত ১৭ ই এপ্রিল রাতে সেহরি খাওয়ার আগে টিওবয়েলে মুখ ধোয়ার জন্য যায়। এ সময় সুমন ও তা সঙ্গী তরুণীর স্তন ও হাত কেটে তাকে হত্যার চেষ্টা করে। গুরুতর আহত অবস্থায় স্বপ্নাকে হবিগঞ্জ ২৫০ শয্যা আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। অর্থনৈতিক সমস্যার কারণে দিনমজুর বিল্লাল মিয়া মেয়ের চিকিৎসা শেষ না করেই বাড়িতে নিয়ে আসে। বিষয়টি বিভিন্ন প্রিন্ট ও অনলাইন পত্রিকায় প্রকাশিত হওয়ার পর আজ উপজেলা প্রশাসন তার চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন।
মোঃ আহমেদ চৌধুরী
মাধবপুর প্রতিনিধি
কার্ড নং ১০৫৩