অপরের শিশুকে বাঁচিয়ে নিজের জীবন উৎসর্গ করলো যুবক

26
আইডি নংঃ ৯৯৬
মোঃ আরিফুল ইসলাম, কিশোরগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি।
কিশোরগঞ্জ জেলার নিকলীতে সাত বছর বয়সী এক শিশুকে পানিতে ডুবে যাওয়া থেকে বাঁচিয়ে হাওরের পানিতেই জীবন দিয়ে দিলেন পারভেজ মিয়া (২৮) নামে এক যুবক। বৃহস্পতিবার (৮ জুলাই) দুপুরের দিকে নিকলী বেরিবাঁধ সংলগ্ন প্রেমঘাটে মর্মান্তিক এ ঘটনাটি ঘটে।
আত্মোৎসর্গকারী যুবক পারভেজ মিয়া জেলার কটিয়াদী উপজেলার চান্দপুর ইউনিয়নের দুর্গাপুর গ্রামের এলেম মিয়ার ছেলে।
পারিবারিক ও স্থানীয় সূত্র জানায়, তিন দিন আগে পারভেজ মিয়া নিকলী সদর ইউনিয়নের টিক্কলহাটি গ্রামে তার খালুশ্বশুর মো. আল-আমিন মিয়ার বাড়িতে বেড়াতে যান।
বৃহস্পতিবার (৮ জুলাই) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে আল-আমিনের সাত বছর বয়সী শিশুপুত্র নাইদুলকে নিয়ে পারভেজ মিয়া ও তার স্ত্রী নাসিমা এক কিলোমিটারের মতো দূরবর্তী নিকলী বেরিবাঁধ সংলগ্ন প্রেমঘাটে গোসল করতে যান।
গোসলের জন্য তিনজনই পানিতে নামার পর হঠাৎ শিশু নাইদুল হাওরের পানির স্রোতে দূরে চলে গিয়ে হাবুডুবু খেতে থাকে।
এ অবস্থায় পারভেজ মিয়া শিশুটিকে বাঁচাতে হাওরের পানিতে একের পর এক ডুব আর সাঁতার দিয়ে প্রাণপন চেষ্টা চালান।
এক পর্যায়ে শিশুটিকে ডুবন্ত অবস্থায় উদ্ধার করে কোনরকমে স্ত্রী নাসিমার হাতে তুলে দিয়ে পারভেজ হাওরের পানিতেই ঢলে পড়েন।
পারভেজ মিয়া হাওরের পানিতে তলিয়ে গেলে স্ত্রী নাসিমা স্বামীকে বাঁচাতে আর্তচিৎকার শুরু করেন।
এ সময় স্থানীয়রা এগিয়ে গিয়ে পারভেজ মিয়াকে উদ্ধারের জন্য তৎপরতা শুরু করেন।
প্রায় এক ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে পারভেজ মিয়াকে স্থানীয়রা উদ্ধার করলেও ততক্ষণে সে মারা যায়। উদ্ধারের পর দ্রুত তাকে নিকলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
এ সময় স্ত্রী নাসিমার কান্নায় ভারি হয়ে ওঠে এলাকার পরিবেশ।
এমন ট্রাজিক মৃত্যু কাঁদাচ্ছে সবাইকে, আলোচিত হচ্ছে মানুষের মুখে মুখে।