বার্সেলোনায় বিয়েলসাকে আনতে বলছেন মেসি

15

ব্রিটিশ ট্যাবলয়েড দ্য সান দাবি করেছে, লিওনেল মেসি বার্সেলোনায় পরবর্তী কোচ হিসেবে চাইছেন মার্সেলো বিয়েলসাকে। ১৬ বছর পর লিডস ইউনাইটেডকে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে উঠিয়ে অভিজ্ঞ আর্জেন্টাইন কোচ নন্দিত ও বন্দিত হয়েছেন গোটা ইংল্যান্ড জুড়ে। তার বর্তমান চুক্তিটি শেষ হয়ে যাবে এই সপ্তাহেই, কিন্তু এখনও ইয়র্কশায়ারের সম্ভ্রান্ত ক্লাবটির সঙ্গে নতুন চুক্তিতে তিনি সম্মত হননি।

মেসি নিজে কিছুই স্বীকার করেন না। কিন্তু বার্সেলোনার সমার্থক শব্দে পরিণত হওয়া আর্জেন্টাইন ফুটবলারের যে ক্লাবটিতে বিশাল প্রভাব কে না অনুমান করতে পারে! এমন জনশ্রুতি আছে যে প্রয়াত টিটো ভিলানোভার পর তার পরামর্শেই কোচ করে আনা হয়েছিল আর্জেন্টিনার জেরার্দো টাটা মার্টিনোকে। সে অবশ্য হতেই পারে। ক্লাবের সেরা খেলোয়াড়, বিশ্বসেরা খেলোয়াড়, তারওপর ক্লাব কর্তৃপক্ষের সঙ্গে তখন মধুর সম্পর্ক ছিল মেসির। কিন্তু বর্তমান বার্সেলোনা সভাপতি জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউয়ের সঙ্গে তার সম্পর্ক ভালো নয়। বরং যা শোনা যায়, খুবই তিক্ত। এ অবস্থায় মেসি বিয়েলসাকে কোচ করে আনার প্রস্তাব দিলে তা মানা হবে কি না সংশয় থাকে।

তবে বার্সেলোনার যে বিপর্যয়কর অবস্থা তাতে নতুন প্রেরণাদায়ী, ক্যারিশম্যাটিক কোচ যে একজন জরুরি সে কথা সবাই মানবেন। আর্নেস্তো ভালভার্দেকে সরিয়ে গত জানুয়ারিতে কিকে সেতিয়েনকে দিয়ে এই বার্সেলোনা স্বরূপে ফিরতে পারবে না।

ওসাসুনার কাছে নিজেদের মাঠে হেরে গিয়ে এবার লা লিগা শিরোপা চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদের হাতে তুলে দিয়েছে বার্সেলোনা। ওই হারের পর সেতিয়েনের দিকে মেসি পরিষ্কার ইঙ্গিত দিয়েছেন যে তাকে নিয়ে বার্সেলোনা এগোতে পারবে না। ক্ষুব্ধ মেসি বলেছেন, এই বার্সেলোনা দুর্বল ও ভুলে ভরা, জানুয়ারির পর অবস্থা আরও খারাপ হয়েছে এবং এই ক্লাবের অনেক কিছুই বদলানো জরুরি।

এ মৌসুমে কোপা দেল রের সেমিফাইনালে হেরে গেছে বার্সেলোনা। হেরে গেছে স্প্যানিশ সুপার কাপের সেমিফাইনালে। লা লিগাটাও হাতছাড়া হলো। বাকি শুধু ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নস লিগ। দলের যে অবস্থা, তাতে এটা জিততে মেসির সঙ্গে সুয়ারেজের ম্যাজিকও লাগবে। সুতরাং বহু বছর পর একটা ট্রফিহীন মৌসুমের সামনে দাঁড়িয়ে বার্সেলোনা। এ বছর না হয় গেল, আগামী মৌসুম থেকে বার্সেলোনা যাতে নতুন করে নতুন আশায় উদ্দীপ্ত হয়ে শুরু করতে পারে সেজন্যই ইংল্যান্ড থেকে যেভাবেই হোক বিয়েলসাকে আনতে বলছেন বলছেন মেসি।

৬৪ বছর বয়সী বিয়েলসা ফুটবলে নিঃশ্বাস ফেলেন। তাকে যেমন মানুষ ‘এল লোকো (পাগল) বলে আবার ফুটবল দার্শনিক হিসেবে শ্রদ্ধার আসনেও বসায়। সংকটকালীন ত্রাতার নাম বিয়েলসা। ফ্রান্সের মার্শেইকে যেমন উদ্ধার করেছেন, ইতালিতে করেছেন লাৎসিওকে। লিডস ইউনাইটেডের কথাই ধরুন। ইংল্যান্ডের অভিজাত ক্লাবটি প্রিমিয়ার লিগে উঠতেই পারছিল না। ২০১৮ সালে তিনি এটির দায়িত্ব নিয়ে প্রথম মৌসুমেই প্রায় তুলে নিয়েছিলেন। দুর্ভাগ্যবশত হেরে যায় সেমিফাইনাল প্লে-অফে। দ্বিতীয় মৌসুম, মানে এবার দ্বিতীয় বিভাগের চ্যাম্পিয়ন করেই লিডসকে তুলে নিয়েছেন প্রিমিয়ার লিগে। বিয়েলসার ফুটবল দর্শন বার্সেলোনার সঙ্গে যায়ও।

চ্যাম্পিয়নস লিগ দিয়ে মৌসুম শেষ হলে কিকে সেতিয়েনের উত্তরসূরি হিসেবে ক্লাব কিংবদন্তি জাভিও আসতে পারেন। তবে সে সম্ভবনাটা জটিল, কারণ অনেকগুলো বিষয়ের সমাধান না হলে মনে হয় না জাভি আসতে চাইবেন। প্রথম সমস্যা তো অবশ্যই বার্তোমেউ। সভাপতি পদে বার্তোমেউ যদি আরেক মৌসুম থাকেন, জাভির কোচ হয়ে আসার সম্ভাবনাটা কমতেই থাকবে। অবশ্য সাবেক সভাপতি হুয়ান লাপোর্তা ফিরে এলে অন্য কথা। আগামী বছর অনুষ্ঠেয় নির্বাচনে ফিরে আসতে পারেন লাপোর্তা।