পাংশা পৌরসভায় ৭০% সড়কই ড্যান্সিং সড়ক হিসেবে খ্যত, ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় চরম দুর্ভোগে এলাকাবাসী

9
শামিম বিশ্বাস, রাজবাড়ী আইডি নংঃ১০১৫ ৮ আগষ্ট রোজ রবিবার, রাজবাড়ী জেলার পাংশা উপজেলার পাংশা পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডে সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় ওয়ার্ড বাসীর দুর্ভোগ।
পাংশা পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ড নারায়নপুর (সৈয়দ বাইতুল্লাহ নগর) এই ওয়ার্ডের ঢাকা গুলশান বনানীর সাথে তুলনা করা হয়। এই ওয়ার্ড মোট ২২০০জনের বসবাস, পাংশা পৌরসভার এই এলাকাকে আবাসিক এলাকা বলা হয়ে থাকে । এখানকার বেশির ভাগ মানুষ ই বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে এসে এখানে জাইগা কিনে বহুতল ভবন নির্মাণ করে বসবাস করে। এখানকার প্রাই সব মানুষ ই বড় বড় চাকরি ও ব্যবসা করেন।
পাংশা পৌরসভা প্রথম শ্রেনির পৌরসভা কিন্তু পৌরসভার ৭০% সড়কই ড্যান্সিং সড়ক হিসেবে খ্যতো। শুধু সড়কের অবস্থা ই এমন না।
পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডে নাই পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা। না আছে ড্রেনেজ ব্যবস্থা।
ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় ইতিমধ্যেই কয়েকটি পরিবার পানির মধ্যে বসবাস করছে। একটি পড়িবার বাড়ী ঘড় ছেড়ে অন্য জায়গায় আশ্রয় নিয়েছে।
৪নং ওয়ার্ডের দুর্ভগের শিকার একটি পরিবারের সঙ্গে কথা হলে মোঃ মিলটন নামের একজন জানান পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা ও ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকার করনে বৃষ্টির পানি বের না হওয়ায় আমার ঘড়ের মধ্যে পানি এসে বসবাসের অনুপযোগী হয়ে গেছে। তাই আমি সহ এলাকার সকলের প্রানের দাবি দ্রুত পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা ও ড্রেনেজ ব্যবস্থা করে আমাদে নিজ বড়িতে বসবাস করার ব্যবস্তা করা।
এ ব্যপারে পাংশা পৌর মেয়র মোঃ ওয়াজেদ আলী মাস্টার এার সাথে মোবাইল ফোন কথা হলে তিনি বলেন আমি পৌর মেয়র হিসেবে পাঁচ মাস দায়িত্ব পালন করছি। নতুন অর্থবছড়ে নতুন বাজেট আসলেই এ সব ঠিক করা হবে। আর যারা জলবদ্ধতায় আটকে আছে তারা কেউ আমাদের এ ব্যপারে কোনোকিছু জানায়নি। না জানালে কিবাবে ব্যবস্তা নিবো।
এ ব্যপারে পাংশা পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের কমিশনার গবিন্দ্র চন্দ্র কুন্ডুর সাথে মোবাইল ফোনে কথা হলে তিনি বলেন এ ব্যপারে খুব দ্রুত ব্যবস্তা নেয়া হবে।