ধুনটে ছাত্রলীগ নেতাকে মারধর করেছে যুবলীগ নেতা।

15

প্রতিনিধি ; মোঃ শিপন শেখ,ধুনট বগুড়া।
আইডি;১২২

বগুড়া ধুনটে উপজেলায় ভ্রাম্যমান আদালতে জব্দকৃত ১০ লাখ টাকা মূল্যের বালু মহালের নিলাম ডাকে অংশ নেয়ায়, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক; আবু সালেহ্ স্বপনকে মারধর করে খায়রুল ইসলাম জুয়েল নামে এক যুবলীগ নেতা।
১২ আগস্ট বুধবার দুপুরে ধুনট উপজেলা পরিষদ চত্বরে এ ঘটনা ঘটে।
এদিকে ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে বালুর নিলাম ডাক স্থগিত করে, উপজেলা পরিষদ চত্বরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

জানা গেছে, ধুনট উপজেলার নিমগাছী ইউনিয়নের বেড়েরবাড়ি বাঙ্গালী নদী থেকে, দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করে আসছিল স্থানীয় ব্যবসায়ীরা।
বুধবার দুপুরে ধুনট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইউএনও; সঞ্জয় কুমার মহন্তের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত সেখানে অভিযান চালায়।
এ সময় বালু উত্তোলনের ড্রেজার মেশিন জব্দ করে ধ্বংস করা হয়।
প্রায় ১০ লাখ মূল্যের বালু জব্দ করে ভ্রাম্যমান আদালত। পরবর্তীতে এই বালু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে নিলাম ডাকের মাধ্যমে বিক্রয়ের উদ্যোগ নেয়া হয়।
কমমূল্যে বালু মহল নিলামে ডেকে নিতে, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা উপজেলা পরিষদ চত্বরে সমঝোতার বৈঠকে বসেন।
ওই বৈঠকে যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে মতবিরোধের সৃষ্টি হয়। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে, ধুনট উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক; আবু সালেহ্ স্বপনকে হঠাৎ চড় থাপ্পর ও মারধর করেন উপজেলা যুবলীগের সদস্য খায়রুল ইসলাম জুয়েল।
এ সময় যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে উত্তোজনা শুরু হলে, সাথে সাথে উপজেলা পরিষদ চত্বর ও বাজার এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

ধুনট উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু সালেহ্ স্বপন বলেন; বালুর নিলাম ডাকে অংশ নেওয়া জুয়েল ও তার লোকজন আমাকে মারধর করে।এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে।

যুবলীগ নেতা খায়রুল ইসলাম জুয়েল বলেন; ছাত্রলীগ নেতা আবু সালেহ্ স্বপন একাই জোর করে বালু মহাল নেয়ার চেষ্টা করেছিল। এজন্য তার সাথে দলীয় নেতাকর্মীদের ধাক্কাধাক্কি হয়েছে। তবে তাকে কোন মারধর করা হয়নি বলে তিনি দাবি করেন তিনি।

ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি কৃপা সিন্ধু বালা বলেন; সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। মারধরের ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ধুনট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইউ,এনও সঞ্জয় কুমার মহন্ত বলেন; বাঙ্গালী নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করায় একটি ড্রেজার মেশিন জব্দকরে ধ্বংস করা হয়, প্রায় ১০ লাখ টাকা মূল্য নির্ধারন করে নিলাম ডাকের ব্যবস্থা করা হয়েছিল। কিন্ত বালুর নিলাম ডাক নিয়ে উত্তেজনার সৃষ্টি হওয়ায় তা স্থগিত করা হয়েছে। পরবর্তীতে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া নেয়া হবে।