“গাইবান্ধায় জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর ৪৬তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত “

12
গাইবান্ধা রিপোর্টার (৯৭৮)।
– আজ ১৫ আগস্ট হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬ তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় পালিত হয়েছে।
উপজেলায় প্রশাসনের আয়োজনে সকাল ১০.০০ ঘটিকায় উপজেলা পরিষদ চত্বরে বঙ্গবন্ধুর মূরালে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার, উপজেলা চেয়ারম্যান, বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারী এবং আওয়ামীলীগের নেতৃত্ববৃন্দ।
শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদনের পরে বৃক্ষ রোপন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব মোহাম্মদ আল মারুফ, আশরাফুল আলম সরকার লেবু, উপজেলা চেয়ারম্যান ও আফরুজা বারী,আহবায়ক (ভারপ্রাপ্ত), উপজেলা আওয়ামী লীগ, সুন্দরগঞ্জ ও সরকারি কর্মকর্তাগণ।
বৃক্ষ রোপন শেষে রুহের মাগফেরাত কামনায় দোয়া পরিচালনা করা হয়।
পরে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা উপজেলা অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব মোহাম্মদ আল মারুফ এর সভাপতিত্বে সভায় প্রধানঅতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মিসেস আফরুজা বারী, আহবায়ক(ভারপ্রাপ্ত),উপজেলা আওয়ামী লীগ, সুন্দরগঞ্জ।
বিশেষ অতিথি ছিলেন জনাব মোঃ আশরাফুল আলম সরকার লেবু, চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ, সুন্দরগঞ্জ।
সভায় প্রধান অতিথি বলেন ১৯৭৫ সালের এই দিনে বিপদগামী সেনা সদস্যরা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সহ তার পরিবারের সদস্যদের হত্যা করে এক কালো অধ্যায় সূচনা করেন।
তারা ভেবে ছিল বঙ্গবন্ধু কে হত্যা করলে এই দেশ পিছিয়ে পড়বে, আওয়ামীলীগ দূর্বল হয়ে যাবে। কিন্তু না তারই সুযোগ্য কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনা নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে দূর্বার গতিতে।
দেশ মধ্যম আয়ের দেশ পরিণত হয়েছে, পদ্মা সেতু হচ্ছে, মেট্রোরেলসহ বড় বড় মেগা প্রকল্প দেশে বাস্তবায়িত হচ্ছে।
বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল, কোন বাঁধায় উন্নয়নের অগ্রযাত্রা ব্যাহত করতে পারবে না।
আফরুজা বারী আরো বলেন দেশ এখনো ষড়যন্ত্র চলছে তাই সকলকে সজাগ থাকতে হবে আমাদের।
কোনভাবেই আর কোন আগস্ট সৃষ্টি হতে দেয়া হবে না।
আওয়ামীগের নেতাকর্মীদের কে অতন্দ্র প্রহরীর ন্যায় কাজ করতে, উন্নয়ন মূলক কাজ জনগণের কাছে তুলে ধরতে হবে।
বিশেষ অতিথি বলেন স্বাধীনতার পর দেশকে যখন পুনর্গঠন করতে যাচ্ছিলেন ঠিক সেই মুহূর্তে কুলাঙ্গাররা হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কে নির্মমভাবে হত্যা করে ক্ষান্ত হননি তার পরিবারের সকলকেই হত্যা করেন। শুধুমাত্র শেখ হাসিনা ও শেষ রেহেনা ব্যতীত।
কিন্তু সকল বাঁধা ও ষড়যন্ত্র ডিঙিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনা এঁর নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে।
আজকে এই শোক দিবসে শপথ নেই সকল ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাব উন্নত দেশের কাতারে।
সেজন্য সকলকে যার যার অবস্থান থেকে কাজ করতে হবে।
সভায় অন্যান্য মধ্যে বক্তব্য রাখেন রেজাউল আলম রেজা, যুগ্ম আহবায়ক, উপজেলা আওয়ামী লীগ, সুন্দরগঞ্জ, উপজেলা প্রাণীসম্পদ অফিসার, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারসহ, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার, আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ প্রমুখ।
এছাড়াও গাইবান্ধা জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শ্রদ্ধাঞ্জলি ও আলোচনা সভা জেলা শহরে অনুষ্ঠিত হয়।