করোনায় বাবা হারালেন মোশাররফ রুবেল

3

মোশাররফ হোসেন রুবেল কিছুতেই নিজের মনকে প্রবোধ দিতে পারছেন না। সান্ত্বনার ভাষা খুঁজে পাচ্ছেন না। তিনি নিজেও করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। আবার সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেও এসেছেন। কিন্তু সেই প্রাণঘাতী করোনা কেড়ে নিল তার পিতা মহিউদ্দীন খন্দকারকে।

করোনা আক্রান্ত হয়ে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন এ অবসরপ্রাপ্ত সামরিক কর্মকর্তা। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৩ বছর। আজ (বুধবার) পড়ন্ত বিকেলে আসরের নামাজের পর তাকে কিশোরগঞ্জের বাজিতপুরে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

জানাজা শেষে জাতীয় ক্রিকেটার মোশাররফ রুবেল সাথে মুঠোফোন আলাপে জানান, ‘আব্বা একদমই সুস্থ ছিলেন। কোনোরকম শারীরিক সমস্যা ছিল না। যেহেতু আর্মিতে ছিলেন, তাই শারীরিক দিক থেকেও শক্ত সামর্থ্য ছিলেন। কোনোরকম জটিল সমস্যা ছিল না তার। ৭৩ বছর বয়সেও আব্বা সুস্থই ছিলেন। কিন্তু এই করোনাই কেড়ে নিলো তার জীবন।’

মোশাররফ রুবেল আরও জানান, শুরুতে জ্বর ও কাশির উপসর্গ দেখা দেয়। টেস্ট করানোর পর ধরা পড়ে কোভিড-১৯। রুবেল বলেন, ‘কোভিড-১৯ পজিটিভ হওয়ার পর আব্বার শ্বাসকষ্ট দেখা দেয়ার সাথে সাথে আমরা ঢাকার সিএমএইচ হাসপাতালে ভর্তি করাই। তিনি আইসিউতেও ছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর আব্বাকে বাঁচানো গেল না। তিনি ছেড়ে গেলেন আমাদের।’

জাতীয় দলের সাবেক বাঁহাতি স্পিনার মোশাররফ রুবেলরা দুই ভাই, দুই বোন। রুবেল জানান, কিশোরগঞ্জের বাজিতপুরে তার পিতা মহিউদ্দীন খন্দকারকে কবরস্থ করার আগে সেনাবাহিনীর সদস্যরা ‘গার্ড অব অনার’ প্রদান করেন।