বাধ্যতামূলক মাস্ক নীতির কিছু স্বাস্থ্য সুবিধা

0

বাধ্যতামূলক মাস্ক পরার আইন মানুষের মুখই শুধু ঢেকে দেবে তা নয়, এটা মানুষকে আরো কিছু স্বাস্থ্য সুরক্ষামূলক আচার পালন করতে উৎসাহিত করবে। যেমন- সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা, হাত ধোয়া ও হাত মেলানো এড়িয়ে চলা ইত্যাদি। বৃহস্পতিবার গবেষকরা এমন তথ্যই দিয়েছেন।

মধ্য এপ্রিল থেকে মে মাসের শেষ অবধি পর্যন্ত প্রায় ৭ হাজার জার্মান নাগরিকের ওপর সমীক্ষা চালান গবেষকরা। জার্মানিতে ২৭ এপ্রিল ঘরের বাইরে মাস্ক বাধ্যতামূলক করা হয়। সেই থেকে মাস্ক পরা মানুষের সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে বাড়তে থাকল, এমনকি যারা এই আইনকে অতিরঞ্জিত বলছিলেন তারাও অনেকে মাস্ক পরিধান শুরু করেন।

গবেষণা বলছে, আদেশ জারি হওয়ার আগে সমীক্ষায় অংশ নেয়া মাত্র ২০ শতাংশ ব্যক্তি মাস্ক পরতেন, অথচ আদেশ জারি হওয়ার পর এই সংখ্যা উন্নীত হয় ৮০ শতাংশে। ‘প্রসিডিংস অব দ্য ন্যাশনাল একাডেমি অব সায়েন্স’-এ গবেষণপত্রটি প্রকাশিত হয়।

মাস্ক পরলে স্বাস্থ্য সুরক্ষামূলক যেসব সুফল মেলে
– কমপক্ষে আটবার বেশি হাত ধুয়ে থাকেন তারা
– ২০ বারেরও বেশি হাত মেলানো থেকে বিরত থাকেন
– যারা মাস্ক পরেন না তাদের চেয়ে মাস্ক পরিহিতরা অন্তত ১৩ বার বেশি সামাজিক দূরত্ব মেনে চলেন।

মাস্ক পরার বিধান বাধ্যতামূলক করা হোক না না-ই হোক, গবেষকরা দেখতে পেয়েছেন যে মাস্ক পরিহিত মানুষজন অধিকতর সমাজের জন্য হিতকারী ও সমাজ সচেতন।

গবেষকরা এই বলে শেষ করেছেন, ‘দেশ কিংবা জাতিগুলো যদি চায় তাদের মানুষজন মাস্ক পরবেন, তবে উচিত হবে বাধ্যতামূলক নীতি অনুসরণ করা ও এর উপকারিতা সম্পর্কে তাদের আগেই অবহিত করা।’

সূত্র: সিএনএন