মহেশপুরে কিশোরী ক্লাবের উদ্যোগে দেশজ খেলাধুলা, উপস্থিত বক্তৃতা ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

87

এস. এম. শফিক, যশোর (৭১৮) প্রতিনিধি:
ঝিনাইদহ মহেশপুর উপজেলার আজমপুর ইউনিয়নের বলিভদ্রাপুর কিশোরী ক্লাবের উদ্যোগে খেলাধুলা, উপস্থিত বক্তৃতা ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ) এর অর্থায়ন ও কারিগরি সহযোগিতায় জাতীয় পর্যায়ের বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা শিশু নিলয় ফাউন্ডেশন এর “কৈশোর কর্মসূচির” অংশ হিসেবে উক্ত প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হয়। প্রকল্প অফিসার মোঃ তৌহিদুল ইসলাম এর সঞ্চালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিআরএকেএস মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জনাব শেখ জামিরুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিশু নিলয় ফাউন্ডেশন এর মাইক্রোফিন্যান্স কর্মসূচির এরিয়া ইন চার্জ জনাব মোঃ খাইরুল বাশার ও আজমপুর ইউপি সদস্য জনাব ফারুখ হোসেন। এছাড়া অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাসটেইনেবল এন্টারপ্রাইজ প্রকল্পের প্রকল্প ব্যবস্থাপক ফায়সাল মাহমুদ জোয়ার্দার ও শিশু নিলয় ফাউন্ডেশন এর বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা।

প্রধান অতিথি তার বক্তৃতায় কৈশোর বয়সটাকে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখ করে এই সময়টাকে কাজে লাগিয়ে মানুষের মত মানুষ হওয়ার আহ্বান ব্যক্ত করেন। এছাড়া তিনি বর্তমান সময়টাকে বিপথগামীতার মোক্ষম সময় উল্লেখ করে নিজেদেরকে অনেক বেশি সচেতন ও সাহসিকতার সাথে যে কোন পরিস্থিতি মোকাবেলা করার সাহস দেন। প্রয়োজনবোধে প্রত্যেককেই এনজিও, ইউনিয়ন পরিষদ ও উপজেলা পরিষদ এর গুরুত্বপূর্ণ দপ্তরের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করার কথা বলেন। বিশেষ অতিথি জনাব বাশার বলেন, টিনেজ বয়সটা অনেক বেশি আবেগপ্রবণ, তাই এই সময়টাতে পড়ালেখার পাশাপাশি শারীরিক ও মানসিক বিকাশে সাংস্কৃতিক চর্চা করার আহবান করেন তিনি।

ক্লাবের পক্ষ থেকে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন সুমাইয়া আক্তার। অনুষ্ঠানে সর্বমোট চারটি ইভেন্টে ১২ জনকে পুরস্কৃত করা হয়। এছাড়া অংশগ্রহণকারী সকলকেই সান্তনা পুরস্কার ও প্রদান করা হয়। চারটি ইভেন্ট এর মধ্যে ছিল উপস্থিত বক্তৃতা, ইসলামী সংগীত/গান, দলীয় অভিনয় ও বল নিক্ষেপ।

উপস্থিত বক্তৃতা প্রতিযোগিতায় সমসাময়িক অনেক বিষয়ে আলোচনা করেন ক্লাবের কিশোরী বক্তারা। উল্লেখযোগ্য আলোচনার মধ্যে ছিল ধর্ষণ প্রতিরোধ, দুর্নীতি ও প্রতিকার, ইভটিজিং, যৌতুক, শিক্ষার সুফল-নিরক্ষরতার কুফল, বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ, মাদক ও নারীর ক্ষমতায়ন।