শেরপুরে জবরদখলকারীদের হামলায় দুই বন প্রহরী আহত

8
শেরপুর প্রতিনিধিঃ-৮৩১
শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে বন বিভাগের জবরদখলকৃত জমি উদ্ধারের ঘটনাকে কেন্দ্র করে মোস্তফা (৬০) ও আরমান (৪৫) নামে দুই বন প্রহরী আহত হয়েছে। ১৯ অক্টোবর সোমবার সকালে উপজেলার সন্ধাকুড়া ফরেস্ট বিট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নালিতাবাড়ী উপজেলার মধুটিলা রেঞ্জ কর্মকর্তা আব্দুল করিম জানান, গত প্রায় এক মাস পূর্বে সন্ধ্যা কুড়া গ্রামের মৃত বাধা গাজীর ছেলে গোলাম মোস্তফা বনের জমির উপর ঘর নির্মাণ কাজ শুরু করে। এসময় বন বিভাগের পক্ষ থেকে গোলাম মোস্তফাকে ঘর উত্তোলনে বাধা নিষেধ করা হয়। খুঁটি গুলো সরিয়ে নেয়ার জন্য বলা হয়। কিন্তু গোলাম মোস্তফা বনের জমিতে পুঁতে রাখা ঘরের খুঁটি সরিয়ে নেননি। সোমবার ভোর সাড়ে ৪ টায় শেরপুরের সহকারী বন সংরক্ষক ডক্টর প্রানতোষ চন্দ্র রায়ের নেতৃত্বে বন কর্মচারীরা গোলাম মোস্তফার পুঁতে রাখা খুঁটিগুলো গুড়িয়ে দেয়। এ ঘটনার পর সকাল ৮ টায় বনপ্রহরী মোস্তফা ও আরমান পার্শ্ববর্তী হলদিগ্রাম চৌরাস্তা বাজার থেকে বাজার করে সন্ধ্যাকুড়া বিট অফিসে ফেরার সময় গোলাম মোস্তফা ও তার লোকজন ওই দুই বন প্রহরীর মোটরসাইকেলসহ অপহরণ করে তাদেরকে বাড়িতে নিয়ে যায়। এসময় গোলাম মোস্তফার লোকজন ওই দুই বন প্রহরীকে ঘরের ভিতরে নিয়ে হাত পা বেঁধে বেধরক মারপিট করে। এতে ওই দুই বন প্রহরী গুরুতরভাবে আহত হয়। তাদের কাছ থেকে টাকা পয়সা ও দুটি মোবাইল সেট ছিনিয়ে নেয়া হয়। খবর পেয়ে অন্যান্য বন প্রহরীরা ঘটনাস্থলে এসে তাদের উদ্ধার করে ঝিনাইগাতী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকাবাসীর মধ্যে চরম উত্তেজনা দেখা দেয়। এনিয়ে বন কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। উল্লেখ্য সন্ধ্যাকুড়া ফরেস্ট বিট এলাকার প্রায় ৬ শ একর জমি জবর দখলকারী দের হাতে বেদখল হয়ে আছে। শেরপুরের সহকারী বন সংরক্ষক ডক্টর প্রানতোষ চন্দ্র রায় ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে।