পুলিশের আবাসিক ভবন নির্মাণের জন্য ১১৯ কোটি টাকা অনুমোদন

35

পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জন্য রাজধানীর অভিজাত এলাকা গুলশান ও সিলেট জেলা পুলিশ লাইন এলাকায় আবাসিক ভবন নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এর জন্য ব্যয় ধরা হয়েছে ১১৯ কোটি চার লাখ ৯০ হাজার ৪৭৬ টাকা।

বুধবার (৪ নভেম্বর) সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির ভার্চুয়াল সভায় এ প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়। সভা শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব আবু সালেহ্ মোস্তফা কামাল। অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সভায় সভাপতিত্ব করেন।

তিনি জানান, প্যাকেজের আওতায় ১৫ তলা আবাসিক ভবন, প্রতি তলায় ৬৫০ বর্গফুট বিশিষ্ট ১২টি ইউনিট, অভ্যন্তরীণ স্যানিটারি ও বৈদ্যুতিকরণ, ভূ-গর্ভস্থ জলাধার, গভীর নলকূপ, পাম্প মোটর, রাস্তা, কম্পাউন্ড ড্রেন ও পিএবিএক্স সিস্টেম নির্মাণ করা হবে।

তিনি আরও বলেন, সর্বনিম্ন দরদাতা বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান হোসাইন কন্সট্রাকশন (প্রাইভেট) লিমিটেড এবং আমানত এন্টারপ্রাইজকে ‘বাংলাদেশ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জন্য ঢাকা গুলশান এলাকায় দুটি বেজমেন্টসহ ১৪তলা আবাসিক ভবন নির্মাণ’ প্রকল্পের একটি প্যাকেজের আওতায় পূর্ত কাজ সম্পাদনে এ অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এতে ব্যয় হবে ৬৩ কোটি ৫০ লাখ ২৪ হাজার ৮০৬ টাকা। প্যাকেজের আওতায় দুটি বেজমেন্টসহ ১৪তলা ভবন, চারটি ইউনিটের প্রতিটি দুই হাজার ২০০ বর্গফুট এবং দুটি ফ্লোরে দুটি ডুপ্লেক্সসহ ৪৮টি ফ্ল্যাট অভ্যন্তরীণ রাস্তা বা পেভমেন্ট, গেটসহ সীমানা প্রাচীর, কম্পাউন্ড ড্রেন এবং গার্ড শেড নির্মাণ করা হবে।

তিনি বলেন, পদ্মা অ্যাসোসিয়েটস অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারস লিমিটেডকে ৫৫ কোটি ৫৪ লাখ ৬৫ হাজার ৬৭০ টাকা ব্যয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে ‘বাংলাদেশ পুলিশ সদস্যের জন্য ৯টি আবাসিক টাওয়ার ভবন নির্মাণ’ প্রকল্পের আওতায় সিলেট জেলা পুলিশ লাইন এলাকায় একটি আবাসিক ভবন নির্মাণ কাজ সম্পাদনের জন্য নিয়োগ দিয়েছে সরকার।