গোবিন্দগঞ্জে মারপিট করে বিমাতা ভাইয়েরা ধান কেটে নিলো বোন ও মায়ের

42
গাইবান্ধা প্রতিনিধি i d 904
গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে বিমাতা ভাইয়েরা মারপিট করে বোন ও মায়ের জমির ধান কেটে নিয়েছে বলে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।
অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে,গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার রাখালবুরুজ ইউনিয়নের চাঁদপুর সিংগা গ্রামের মৃত-আছান সরকারের মেয়ে শান্তনা খাতুন ও মা আঙ্গুর বেওয়াকে বিমাতা ভাই সাদ্দাম হোসেন সরকার (৩৫), শাহাদুল সরকার (৪০), শাহজাহান সরকার (৩৭) গণ বিগত ১৭ বছর যাবৎ শান্তনা খাতুন ও তার মা আঙ্গুর বেওয়ার পৈত্তিক জমি থেকে উচ্ছেদ করার জন্য বিভিন্ন ভাবে মারপিট ও নির্যাতন করে আসছে। স্থানীয় ভাবে এ নিয়ে অনেক আপোষ মিমাংসার চেষ্টা করলেও তারা মানে না। পিতার পৈত্তিক সুত্রে পাওয়া মেয়ে ও মায়ের ৮৫ শতাংশ জমির রোপা আমন ধান জোরপূর্বক বিমাতা ভাইয়েরা কেটে নেওয়ার হুমকি দিলে গত ৫ নভেম্বর বিজ্ঞ আদালতে ৩২৯/২০ নং একটি পিটিশন মামলা দায়ের করে। যাহার ধারা ১৪৪/১৪৫। বিজ্ঞ আদালতের এ মামলার বিষয়টি বিমাতা ভাইয়েরা জানতে পেরে আজ ৮ নভেম্বর (রবিবার) সকাল ৯ টার দিকে বিমাতা ভাইয়েরা সহ অজ্ঞাত ৮/১০ জন লোক লইয়া বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে দলবদ্ধ হইয়া ওই জমির ধান চুরি করিয়া নিয়ে যাওয়ার সময় বিকেল ৫ টার দিকে শান্তনা খাতুন বাঁধা দিতে গেলে তাকে এলোপাথারী ভাবে মারপিট করতে থাকে। এ সময় শান্তনার মা আঙ্গুর বেওয়া মেয়েকে উদ্ধার করতে গেলে তাকেও এলোপাথারী ভাবে মারপিট করে গুরুত্বর জখম সহ শ্লীলতাহানী ঘটায়। এতে প্রায় ৪০ হাজার টাকার ক্ষতি সাধন হয়েছে বলে শান্তনা খাতুন জানান। মেয়ে ও মায়ের চিৎকারে স্বাক্ষীগণ আগাইয়া এসে তাদের উদ্ধার করে গোবিন্দগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে দেয়।
এ বিষয়ে শান্তনা খাতুন বাদী হয়ে বিমাতা ভাই, ভাবিসহ অজ্ঞাত ৮/১০ জনকে আসামী করে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।
ছবিতে থাকতে পারে: 2 জন ব্যক্তি, যে টেক্সটে 'গোবিন্দগঞ্জে মারপিট করে বিমাতা ভাইয়েরা ধান ধান কেটে নিলো বোন ও মায়ের' লেখা আছে